বারবার মনে হয় মরে যাই

বারবার মনে হয় মরে যাই…

আমি অনেক মানসিক সমস্যা ভুগছি। ভালো করে পড়তে পারছিনা। শুধু মনে হয় আমি দূরে কোথাও পালিয়ে যাই, মরে যাই….বাঁচতে ইচ্ছে করে না আমার। আমার ভীষণ একা আর অসহায় লাগে। 

আগে আমি অনেক পড়াশোনা করতাম। কিন্তু এখন একদমই করি না…..আম্মু আব্বু অনেক ব্যস্ত হওয়ায় সারাদিন বাসায় একা থাকি। এই একাকিত্ব অনেক কষ্ট দেয় আমায়। বারবার মনে হয় মরে যাই। আম্মু আব্বু আমাকে আমার friend দের সাথে কথাও বলতে দেয় না। ওরা বুঝে না যে আমিও মানুষ……একা থাকতে অনেক খারাপ লাগে। আগে আমি অনেক হাসিখুশি ছিলাম কিন্তু এখন একা একা শুধু কান্না করি। আর সুইসাইডের চেষ্টা করি। দুই বার ঘুমের ওষুধ খাইছিলাম…..আর প্রায়ই আমি হাত কাটি। কিন্তু আমার আব্বু আম্মু এতটাই ব্যস্ত যে এগুলোর কিচ্ছু জানে না। আমার অনেক বড় একটা স্বপ্ন ছিলো, ঢাকা মেডিক্যাল এ পড়বো। কিন্তু এখন মনে হচ্ছে এসবের কিছুই হবে না। তার আগেই আমি মরে যাবো…..মরতে পারলেই যেন বাঁচি। আম্মু আব্বুকে অনেক বার বলছিলাম ডাক্তার দেখানোর জন্য কিন্তু ওরা হেসে উড়িয়ে দিয়েছে। আমার কথা একটুও বুঝে না। পড়ি না বলে উঠতে বসতে কথা শুনায়। আমি এসব থেকে মুক্তি চাই। ভালো করে পড়তে চাই। সবচেয়ে বড় কথা ভালো ডাক্তার হতে চাই। কিন্তু এমন চলতে থাকলে আমি মরে যাবো। প্লিজ সাহায্য করুন…..আমি এখন কি করবো?

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

আমাদের পরামর্শ

শুরুতেই ধন্যবাদ আমাদের কাছে খোলাখুলি ভাবে বিষয়টি উপস্থাপন করার জন্য। আপনি বলছেন আপনার ভীষণ একা আর অসহায় লাগে এবং সারাদিন আপনি বাসায় একা থাকছেন। সেই থেকে আপনার মরে যেতে ইচ্ছা করে। আপনার কথা থেকে পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে আপনি একাকীত্ব এবং বিষণ্নতায় ভুগছেন। সেই সাথে আপনার মধ্যে নিজের ক্ষতি করা এবং আত্মহত্যার প্রবণতাও রয়েছে। ইতোমধ্যে আপনি দুইবার সেই চেষ্টাও করেছেন। এমতবস্থায় আপনাকে জরুরি ভিত্তিতে একজন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ’র (সাইকিয়েট্রিস্ট) পরামর্শক্রমে ঔষুধ খেতে হবে। সেই সাথে একজন কাউন্সেলিং অথবা ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিস্ট এর কাছে কাউন্সেলিং/সাইকোথেরাপি সেবা নিলে ভালো ফল পাবেন। 

আপনাকে আবারো অভিনন্দন জানাচ্ছি এই কারণে যে, আপনি নিজে থেকে বাবা-মা’কে চিকিৎসক দেখানোর কথা বলেছেন। দুর্ভাগ্যজনকভাবে তারা সেটার গুরুত্ব দিচ্ছেন না। ভালো হয়, পরিবার বা পরিচিতজনদের মধ্যে এমন কাউকে খুঁজে বের করা যিনি এসব বিষয় সামান্য হলেও বোঝেন। আপনি নিজেও বাবা-মা’কে বিষণ্নতা (Depression) সম্পর্কে জানতে বলতে পারেন। তারপরও তারা না এগিয়ে এলে আপনাকে নিজে থেকে চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে। এটা আপনার জীবন, তার দেখভাল আপনাকেই করতে হবে।

আমি কল্পনাও করতে পারছি না, কী পরিমাণ কষ্ট থেকে আপনি সুইসাইডের চেষ্টা করেন। আপনি আপনার কষ্ট থেকে চিরতরে পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য এমনটা করছেন, কিন্তু এটিই  একমাত্র সমাধান না। এভাবে সমস্যা সমাধান না হয়ে বরং তা বাড়িয়ে দিচ্ছে।

আপনি কোথায় আছেন জানিনা, তবে বিভিন্ন কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রছাত্রীদের জন্য বিনামুল্যে কাউন্সেলিং সেবা রয়েছে। এই সাইটে এরকম কিছু ঠিকানা দেয়া আছে। এছাড়াও একবারে একাকীত্ব বা অসহায় লাগলে নিচের হেল্পলাইন গুলোতে ফোন করতে পারেন।  

কান পেতে রই

আমাদের নাম্বারগুলোঃ

গ্রামীনফোনঃ ০১৭৭৯৫৫৪৩৯১, ০১৭৭৯৫৫৪৩৯২

এয়ারটেলঃ ০১৬৮৮৭০৯৯৬৫, ০১৬৮৮৭০৯৯৬৬

বাংলালিংকঃ ০১৯৮৫২৭৫২৮৬

রবিঃ ০১৮৫২০৩৫৬৩৪

টেলিটকঃ ০১৫১৭৯৬৯১৫০

প্রতিদিন দুপুর ৩ টা থেকে রাত ৯ টা আর বৃহস্পতিবার দুপুর ৩টা থেকে ভোর ৩টা পর্যন্ত।

আপনার মধ্যে ওই প্রতিভা আছে বলেই কিন্তু আপনি ঢাকা মেডিক্যাল এ পড়ার স্বপ্ন দেখেছেন। অবশ্যই আপনি সেটা পারবেন। আর সেটাই আপনার বেঁচে থাকার অন্যতম কারণ।  শুভকামনা রইল।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!
+ posts

Post Author:

সহকারি অধ্যাপক, এডুকেশনাল এন্ড কাউন্সেলিং সাইকোলজি বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।